Delhi-Agra-Kashmir Package -3 in 1

8N9D

Tour Overview

03 Nts Delhi + 1 Nt Pahalgam + 3 Nt Srinagar + 1 Nt House Boat Srinagar

ভূ-স্বর্গ নামে পরিচিত কাশ্মীর। এর রূপে এমনই মুগ্ধ হয়েছিলেন মোঘল বাদশাহ জাহাঙ্গীরযে কাশ্মীরকে স্বর্গের সাথে তুলনা করেছেন। কাশ্মীরের রূপের কথা নতুন করে বলার কিছু নাই। ঘুরে বেড়াতে পছন্দ করে এমন সবারই মনে সুপ্ত বাসনা থাকে জীবনে একবার হলেও কাশ্মীর ঘুরে আসার। প্রতি বছরই দেশের অনেক ভ্রমণ পিপাসুরা এই স্বর্গরাজ্য কাশ্মীরে ছুটে যায় এর অপার সৌন্দর্যে মুগ্ধ হতে। কাশ্মীর হলো পৃথিবীর একটি ভুস্বর্গীয় সৌন্দর্যের প্রাকৃতিক লিলা ভূমি। পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গা থেকে ভ্রমণ পিয়াসুরা এই অঞ্চলে বছরের বিভিন্ন সময় ভ্রমন করতে আসেন।

ভূস্বর্গ বা কাশ্মীর মূলত হিমালয়ান পর্বতমালার দুটি রেঞ্জের মধ্যবর্তী একটি উপত্যকা অঞ্চল। এই অঞ্চলের দৈর্ঘ ১৩৫ কিলোমিটার এবং প্রায় ৩২ কিলোমিটার প্রস্থের এই উপত্যকার এক সাইডে হিমালয়ের মধ্য হিমালয় এবং অন্য পাশে বৃহৎ হিমালয় অবস্থিত। মধ্য দিয়ে চলে গেছে ঝিলাম নদী বা জেহলাম নামের এই নদী। দক্ষিণ দিকে অনন্তনাগ যাকে স্থানীয়ভাবে বলে ইসলামাবাদ, সোপিয়ান, কুলগাম ও পুলওয়ামা। মধ্যখানে বাডগাম ও গ্যান্ডরবাল ও শ্রীনগর এবং উত্তরে বারামুলা, বান্ডিপুরা ও কপুওয়ারা। এই দশটি প্রশাসনিক জেলায় বিভক্ত এই উপত্যকা। ভৌগোলিকভাবে কাশ্মীর বা এই ভূস্বর্গকে তিন ভাগে ভাগ করা হয়। সেন্ট্রাল, নর্থ ও সাউথ কাশ্মীর। সমগ্র জম্মু-কাশ্মীরে মোট জনসংখ্যা এক কোটি ২৫ লাখ। শুধুমাত্র কাশ্মীর উপত্যকার জনসংখ্যা প্রায় ৫৩ লাখ।

কাশ্মীর ভ্রমণের উপযুক্ত সময়ঃ

বছরের যে কোন সময় কাশ্মীর ভ্রমণ করা যায়। আবহাওয়ার দিক থেকে কাশ্মীরের মৌসুম মূলত চারটি। গ্রীস্মকাল যা জুন, জুলাই এবং আগষ্ট পর্যন্ত স্থায়ী হয়, শরৎকাল যা সেপ্টেম্বর, অক্টোবর এবং নভেম্বর পযন্ত স্থায়ী হয়, তারপর শীতকাল যা ডিসেম্বর, জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এবং সর্বশেষ বসন্তকাল যা মার্চ থেকে শুরু হয়ে মে মাস পর্যন্ত থাকে। এই চার মৌসুমে কাশ্মীরে চার রকম রুপ মেলে। স্নোফল পছন্দ করলে অবশ্যই শীতকাল হবে আপনার ভ্রমণের আদর্শ সময়, তবে শীতে কাশ্মীর ভ্রমণ করতে হলে আপনাকে রাখতে হবে বাড়তি প্রস্তুতি। গরম কাপড়, গ্লাভস, বুট প্রয়োজন হবে। তবে শীতকালে সব এলাকায় ভ্রমণ নাও হতে পারে বরফের কারনে রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। আর যারা ফুলের কাশ্মীরকে দেখতে চান, তাদের জন্যে বসন্তকাল হবে ভ্রমণের জন্যে আদর্শ সময়। এই সময় টিউলিপ পাবেন, গাছে ফুল পাবেন এবং বাড়তি হিসেবে পাবেন বরফ তো পাবেনই এবং এই সময় সব কিছুর দাম অনেক বেশী থাকে। আপেল এর সিজন শুরু হয় শরৎকালে এই সময় ও যেতে পারেন। বর্ষাকালের শেষের দিকে সবুজ কাশ্মীরকে দেখার আনন্দ অন্যরকম। সাথে বাগান ভরা আপেল, জাফরান, আখরোট প্রভৃতি তো আছেই। এছাড়া বর্ষার যে আলাদা একটা সৌন্দর্য্য আছে সেটা আরও দ্বিগুন হয়ে যায় কাশ্মীরে। তাই এটার সৌন্দর্য্য ভিন্ন। এসময় অফ সিজন হওয়ায় সব কিছু দাম অনেক কম থাকে।

কাশ্মীর ভ্রমণের দর্শনীয় স্থানঃ

কাশ্মীর ভ্রমণের অনেক গুলো দর্শনীয় স্থান রয়েছে তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য বা ভ্রমণ করতে ভুলবেনা না নিচের জায়গা গুলিঃ

  • প্যাহেলগাম
  • সোনমার্গ
  • বালতাল
  • গুলমার্গ
  • শ্রীনগর
  • ডাললেক

প্যাহেলগামঃ শ্রীনগর থেকে পহেলগামের দূরত্ব ৯১ কিলোমিটার। জুলাই হতে অক্টোবর পর্যন্ত এখানে দেখা মেলে রোডের দুইPahelgam পাশে আপেল বাগান। এখানে আরো দেখার আছে লিদার নদী, চান্দেরওয়ারি, বেতাব ভ্যালি, আরিয়ান, কাশ্মীর ভ্যালী পয়েন্ট, কানিমার্গ। ঘোড়ায় বসে ঘুরে বেড়ানোর মজা পাবেন এই পহেলগাম। এখানে মিনি সুইজারল্যান্ড নামে পরিচিত বাইসারান। প্যাহেলগাম হোটেলে এক বা দুই রাত থেকে এর আসে পাশের সকল জায়গা গুলি দেখতে পারেন। ঘুরার জন্য ট্যাক্সি এবং ঘোড়া ব্যবহার করতে হবে।

সোনমার্গঃ শ্রীনগর থেকে সোনামার্গের দূরত্ব ৪২ কিলোমিটার। এখানে আছে ঝর্ণা, থাজিয়ান হিমবাহ। এছাড়াও দেখা মিলবে সিন্ধু নদীর আরো আছে স্লেজিং, স্নো বাইক ও ঘোড়ায় চড়ার ব্যবস্থা এবং এখান থেকে বালতাল ঘুরে আসতে পারেন। সোনমার্গ থেকে বালতালের দূরত্ব প্রায় ১৪ কিলোমিটার। ভাড়া জনপ্রতি ৫০০ রুপী।

শ্রীনগরঃ শ্রীনর শহরে প্রথমেই দেখা মিলবে পাহাড়ের চুড়ায় বরফের মতো সাদা তুষার। আছে মোঘল গার্ডেন, টিউলিপ গার্ডেন,dal lake হযরত বাল মসজিদ, ডাল লেক ও নাগিন লেক। সারা দিন গাড়ি ভাড়া নিয়ে এই শহরটি ঘুরে দেখলে ভালো লাগার মতো।

এই অঞ্চল গুলো ঘুরে দেখতে হলে প্রায় ১৫ দিনের মতো সময় লেগে যাবে।

তবে মোটামুটি ভাবে কাশ্মীরের এই উল্লেখিত স্থান গুলো ঘুরে দেখতে ৭ থেকে ৮ দিন সময় লাগবে।

এই হিসাব ও ভ্রমণ প্লান এর উপর নির্ভর করে।

কিভাবে কাশ্মীর যাবেন?

প্রথমে আপনার পাসপোর্টে ভারতীয় ভিসা লাগাতে হবে।

আর কাশ্মীরে ভ্রমণ করার সময় ভিসা কপি, পাসপোর্টের কপি, এনআইডির কপি কয়েকটি করে রাখতে হবে।

প্লান-১-ঃ ঢাকা থেকে বিমানে করে ভারতের দিল্লী হয়ে শ্রীনগর যেতে হবে। এক্ষেত্রে সময় অনেক কম লাগবে।

কিন্ত খরচ একটু বেশি লাগবে।

আর যদি কলকাতা হয়ে যান তাহলে কলকাতা থেকে শ্রীনগর বিমানে ৬১০৫ থেকে ৭০০০ রুপী লাগতে পারে।

আর ঢাকা থেকে কলকাতা পর্যন্ত বাসে ভাড়া পড়বে ১৬০০ থেকে ১৮০০ টাকা। মৈত্রী ট্রেনে ভাড়া পড়বে ২৫০০ টাকা।

কলকাতা হাওড়া ট্রেন স্টেশন থেকে হিমগিরি অথবা তাওয়াই ট্রেনে করে জম্মু পর্যন্ত যেতে পারবেন।

তাওয়াই ট্রেন সপ্তাহে সাত দিন কলকাতা ছেড়ে যায়।

হিমগিরি সপ্তাহে শুক্রবার শনিবার এবং সোমবার কলকাতা থেকে রাত ১২:৫৫ মিনিটে ছেড়ে যায় জম্মুর উদ্দ্যেশে।

প্রায় ৩৬ ঘন্টা থেকে ৩৭ ঘন্টার মতো সময় লাগে।

হিমগিরি ট্রেন যাত্রা অসাধারণ এবং এই ট্রেনের ভাড়া এসি প্রথম ৫২০০ রুপী, এসি থ্রি টিয়ার ভাড়া ২০৯০ রুপী,

এসি টু টিয়ার ২৯৯০ রুপী এবং নন এসি স্লিপার ভাড়া ৭৫০ রুপী।

জম্মু রেল স্টেশন থেকে শ্রীনগর

এছাড়া ও জম্মু রেল স্টেশন থেকে বাসে বা জীপে অথবা প্রাইভেট ট্রেক্সিতে আপনাকে যেতে হবে শ্রীনগর পর্যন্ত। নন এসি বাস ভাড়া পড়বে ৬০০ থেকে ৭০০ রুপী, এসি বাসের ভাড়া পড়বে ১২০০ থেকে ১৩০০ রুপী। বাসে যাওয়ার ক্ষেত্রে সময় লাগতে পারে ৮ -১০ ঘন্টা। যদি ৮ থেকে ১০ জনের গ্রুপে যান তাহলে একটি জীপ বা ট্রেক্সি ভাড়া পড়বে ৭-৮ হাজার টাকা (জন প্রতি ভাড়া প্রায় বাসের মতো পড়বে) এবং সময় ২-৩ ঘন্টা কম লাগবে।

ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল রাজধানী দিল্লি (Delhi) বিশ্বের বৃহত্তম মহানগরী গুলোর মধ্যে অন্যতম। প্রায় ১১ বার বিভিন্ন শাসকের সম্রাজ্য বিস্তার করা এই ব্যস্ত ও জনবহুল শহরের প্রতি কোণে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ছাপ। সেই সাথে মুঘল আমলের বিভিন্ন স্থাপনা দিল্লির সংস্কৃতিকে করেছে আরও সমৃদ্ধ। তাই তো দিল্লি জামে মসজিদ, ঐতিহ্যবাহী বাজার চাঁদনী চক, কুতুব মিনার এবং বিভিন্ন সম্রাটদের সমাধিসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান দেখতে প্রতি বছর লক্ষ লক্ষ পর্যটক দিল্লি ভ্রমণে আসে।

দিল্লিতে ভ্রমণের জন্য উপযুক্ত সময়

দিল্লিতে গরমের সময় অসহনীয় গরম আর শীতের দিনে কনকনে ঠাণ্ডা। তাই খুব ঠাণ্ডা ও গরমের দিনগুলো পরিহার করে দিল্লি ভ্রমণ করা উচিত। সেই ক্ষেত্রে ফেব্রুয়ারী, মার্চ, অক্টোবর ও নভেম্বর মাস দিল্লিতে যাওয়ার জন্য সবচেয়ে ভালো সময়। আর পূজার সময় দিল্লিতে গেলে ভিন্ন এক শহর হিসাবে দিল্লিকে আবিষ্কার করতে পারবেন।

দিল্লীতে পরিদর্শনযোগ্য স্থান

দিল্লীতে উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থানগুলির মধ্যে রয়েছে –

  • ইন্ডিয়া গেট
  • রাষ্ট্রপতি ভবন
  • রেড ফোর্ট (লাল কেল্লা)
  • জামা মসজিদ
  • গুরুদুয়ারা বাংলা সাহেব
  • যন্তর মন্তর
  • কুতুব মিনার
  • বাহাই মন্দির (লোটাস মন্দির)
  • রাজ ঘাট
  • পুরনো কেল্লা (ওল্ড ফোর্ট)
  • লোধি গার্ডেন
  • হুমায়ূনের সমাধিসৌধ
  • সফদরজঙ্গ সমাধিসৌধ
  • অক্ষরধাম মন্দির
  • কনৌট প্লেস
  • দিল্লী হাট
  • লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির (বিড়লা মন্দির)
  • ঈশকন্ মন্দির
  • দ্য ন্যাশনাল জুওলোজিক্যাল পার্ক
  • নিজামুদ্দিন দরগাহ
  • বিজয় মন্ডল
  • সুনেহরি মসজিদ
  • ইন্দিরা গান্ধি ন্যাশনাল সেন্টার
  • জামালি কামালি মসজিদ
  • লাল কোট
  • মাটিনী মেমোরিয়্যাল
  • কালকা জি মন্দির
  • ন্যাশনাল সায়েন্স সেন্টার
  • দিগম্বর জৈন মন্দির
  • দ্য গার্ডেন অফ ফাইভ সেন্সেস
  • ন্যাশনাল রেল মিউজিয়াম, ইত্যাদি।

ভারতের পশ্চিম উত্তর প্রদেশ আগ্রার এক রাজকীয় সমাধির নাম তাজমহল (Taj Mahal)। আগ্রা শহরের পূর্ব দিকের যমুনা নদীর দক্ষিণ তীরে অবস্থিত বিশ্বের সপ্তাশ্চার্য এই নিদর্শনটি বিশ্ব ঐতিহ্যের সর্বজনীন শ্রেষ্ঠ কর্ম হিসেবে বিবেচিত। শান্তি ও সৌন্দর্যের প্রতীক এই তাজমহল প্রেমিক যুগলদের কাছে ভালোবাসার নিদর্শন হিসাবে সুপরিচিত। তাই যুগ যুগ ধরে পর্যটকদের আকর্ষণের শীর্ষে থাকা তাজমহল দেখতে এবং ইতিহাস জানতে অসংখ্য পর্যটক বেড়াতে আসেন।

তাজমহলের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

মুঘল সম্রাট শাহজাহান তার দ্বিতীয় স্ত্রী আরজুমান্দ বানু বেগম (যিনি মমতাজ নামেই বেশী পরিচিত) কে উৎসর্গ করে এই অপূর্ব সমাধিসৌধটি নির্মাণ করেছিলেন। মমতাজ তার চতুর্দশ কন্যা জন্মদানের সময় মৃত্যুবরণ করেছিলেন। মমতাজের মৃত্যুর পর সম্রাট শাহজাহান মানসিকভাবে প্রচণ্ড ভেঙ্গে পড়েছিলেন আর তাই স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসার নিদর্শন স্বরূপ হিসেবে তাজমহল নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেন। ১৬৩২ খ্রিষ্টাব্দে তাজমহলের নির্মাণ কাজ শুরু হয়ে তা প্রায় ২২ বছর পর ১৬৫৩ খ্রিষ্টাব্দে শেষ হয়েছিল। তাজমহলের নির্মাণ কারিগর নিয়ে অনেক ধরনের বিতর্ক থাকলেও মূলত উস্তাদ আহমেদ লাহুরির তত্ত্বাবধানে প্রায় ২,০০০ জন পারস্য, অটোম্যান সম্রাজ্য এবং ইউরোপের সুনিপুন নকশাকার ও কারিগর পারস্য ও মুঘল স্থাপত্য অনুসারে এটি নির্মাণ করেন। ১৯৮৩ সালে মুঘল স্থাপ্যতের নিদর্শন তাজমহল ইউনেস্কো কর্তৃক বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়।

তাজমহল কিভাবে ঘুরে দেখবেন

প্রায় ৪২ একর জায়গা জুড়ে গড়ে উঠা পুরো তাজমহল কমপ্লেক্স প্রধানত পাঁচটি ভাগে বিভক্ত- প্রধান প্রবেশদ্বার, বাগান, মসজিদ, অতিথিশালা ও চারটি মিনার সম্মেলিত সম্রাজ্ঞী মমতাজের সমাধিসৌধ।

তাজমহলের মূল চত্বরটি দুর্গের মতো তিন দিক থেকে প্রাচীর দিয়ে ঘেরা। প্রাচীরের বাইরে শাহজাহানের অন্যান্য স্ত্রী ও মমতাজের প্রিয় পরিচারিকাদের সমাধি অবস্থিত। প্রাচীরের ভিতরে দেয়াল গুলো নকশাখচিত। সবগুলো প্রাচীর দিয়ে গম্বুজাকৃতির একটি স্থাপত্য গড়ে তোলা হয়েছে, যা বর্তমানে জাদুঘর হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। মুঘল স্থাপত্য ও নকশাখচিত তাজমহলের প্রধান প্রবেশদ্বার মার্বেল পাথরে তৈরি। মূল চত্বরে দুটি পৃথক স্থাপনায় লাল রঙের মসজিদ ও মুঘল অতিথিশালা জাওয়াব রয়েছে।

তাজমহলের সামনের চত্বরে একটি “চারবাগ” রয়েছে। এটি স্বর্গের বাগান হিসেবে পরিচিত। উঁচু প্রাচীর দিয়ে ১৬ টি আলাদা ফুলের বাগান, গাছ গাছালিতে ঘেরা চলাচলের রাস্তা ও সুন্দর কিছু ঝর্ণা আছে। সমাধি অংশ ও প্রধান গেটের মাঝামাঝি অংশে একটি মার্বেল পাথরের চৌবাচ্চা রয়েছে যার পানিতে পুরো তাজমহলের প্রতিফলিত রূপ দেখা যায়।

সমাধির ভিতরের অন্দরমহল অষ্টভুজাকৃতির খোঁদাই করা অর্ধ বৃত্তাকার মার্বেল পাথর দিয়ে সাজানো। এখানেই সম্রাট শাজজাহান ও তার স্ত্রী মমতাজের সমাধিস্থল। যদিও এগুলো শুধু ডামি সমাধি যা সূক্ষ তারের কারুকার্য মণ্ডিত মার্বেলের এক ধরনের পর্দা দিয়ে আবৃত। ডামি সমাধি স্থলের ৮০ ফুট নিচে ভাস্কর্যশিল্পে অলংকৃত শিলালিপিতে সমন্বিত রয়েছে তাদের প্রকৃত সমাধি। পূর্ণিমার সময় যখন সমাধির উপর চাঁদের আলো প্রতিফলিত হয় তখন চারপাশে এক অপার্থিব পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

তাজমহল কমপ্লেক্সের ভিতরে পিট্রা দুরা কৌশল ব্যবহার করে মূল্যবান পাথরের উপর জ্যামিতিক ও ফুলেল নকশায় পবিত্র কুরআনের আয়াত সুন্দরভাবে খোঁদাই করা রয়েছে।

প্রচলিত আছে, শেষ সময়ে সম্রাট শাহজাহান যমুনা নদীর তীরে তাজমহলের বিপরিতে আরেকটি তাজমহল নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন যা বর্তমানে “কালা তাজমহল” নামে পরিচিত। এখান থেকে সূর্যের ও চাঁদের আলোয় তাজমহলের বিভিন্ন পরিবর্তিত অপরূপ সুন্দর রূপ দেখা যায়। কালো মার্বেল দিয়ে তৈরি করা এই দূর্গ ব্রিজের মাধ্যমে তাজমহলের সাথে সংযুক্ত।

আর তাজমহল থেকে ১ মাইল দূরে যমুনা নদীর ডান দিকে আগ্রা ফোর্ট অবস্থিত যা মুঘল আমলে সেনাদের দূর্গ থাকলেও পরবর্তীতে শাহজাহানের নেতৃতে রাজ পরিবারের বাসস্থানের সাথে সাথে রাজকীয় নানা কর্মকাণ্ডের স্থান হিসেবে পরিচিত পায়।

কিভাবে যাবেন আগ্রার তাজমহল

ঢাকা থেকে দিল্লি যাওয়ার জন্য ভ্রমণ গাইডের দিল্লি ভ্রমণের যাতায়াতের অংশটুকু পড়ে নিতে পারে। দিল্লির আনন্দবিহার ষ্টেশন পৌঁছে ট্রেন বা বাসে আগ্রা যেতে পারবেন। ট্রেনের ক্ষেত্রে, নিউ দিল্লি রেলওয়ে স্টেশন বা হযরত নিজামুদ্দিন রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্রেনে আগ্রা যেতে সময় লাগবে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা। আর বাসে যেতে সময় লাগবে তিন থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টার মতো। আর প্লেনে যাওয়ার ক্ষেত্রে বাগডোগরা থেকে দুই ঘণ্টার জার্নি করে দিল্লি চলে যেতে পারবেন। তারপর ট্রেন বা বাসে চড়ে আগ্রা পৌঁছাতে পারবেন।

Delhi-Agra-Kashmir Tour Package Itinerary :

 

Day 01 :  Journey Starts from Dhaka to Delhi ( by Air / Road/Train.)

Pick and Greet by our representative and overnight stay at Hotel at Delhi.

Day 02 :  Delhi local Sightseeing

After Breakfast at Hotel we will arrange local sightseeing:  India gate, Rashtrapati Bhavan Lotus Temple Akshardham Red Fort Rajghat Etc. Evening time return back to Delhi hotel, Dinner Overnight Stay at Hotel.

Day 03 : Delhi to Agra Day Trip

After Breakfast Agra full day excursion to Agra Today visit Agra sightseeing, Todays Having Sightseeing of Agra City, Taj Mahal, Agra Fort , and Itmad-ud-Daula’s tomb Local Market Taj Mehal mausoleum built by a sorrowing Shah Jahan in memory of his young wife, Mumtaz Mahal evening return to Delhi overnight rest at Delhi.

Day 04: Airport Drop – Arrive Srinagar – Pahalgam

After breakfast check out from the hotel and transfer to Airport. Our service start on  your arrival at Srinagar airport. Meet & greet and transfer you to Pahalgam (The Valley of Shepherds) enroute visit through the Saffron fields Pampore, Avantipura Ruins, Apple gardens, Pine Valley etc, Evening free for  leisure. Dinner & overnight at Pahalgam Hotel.

Day 05:- Pahalgam Sightseeing – Srinagar

After breakfast leave for inner-line  sightseeing here you can see Aru Valley, Chandanwari, Betaab Valley, Baisaran Mini Switzerland etc (at your own cost) through the local Union taxi/ Pony Ride. In the evening leave for Srinagar..  Dinner & overnight at Srinagar Hotel.

Day 06:- Srinagar   (Local Sightseeing)

After breakfast you will proceed to local sightseeing of the Mughal Gardens like  Cheshma Shahi garden, Nishat Bagh, Shalimar Bagh etc & Shankaracharya Temple. In the evening enjoy a Shikara Ride. Dinner & overnight at Hotel.

Day 07: Srinagar – Gulmarg (Day trip)

After  breakfast leave for Gulmarg. One of the most beautiful destination in Kashmir. Gulmarg its 65 Kms far from Srinagar, on arrival in Gulmarg you will proceed to enjoy gondola ride (at your own cost)  through gondola you can see complete snow cape mountain with International border between India & Pakistan, after enjoying gondola ride you will return back to Gulmarg again and visit Gulmarg golf Course  , church etc , In the evening return back to Srinagar. Dinner & overnight at Srinagar Hotel.

Day 08: Srinagar – Sonmarg (Day trip)

After breakfast full day excursion of Sonmarg which is one of the most beautiful drive from Srinagar. You, may take a pony ride / Local Union Taxi (at your own cost) to Zero Point Zojila-Pass, fish point, Thajiwas Glacier where snow remains round the year. In the evening return back to Srinagar. Dinner & overnight at Srinagar Houseboat.

Day 09: Srinagar Airport Drop

After breakfast you will proceed to Srinagar Airport to board the flight for your onwards destination with lots of pleasant memories.

Accommodation To Be Used

City

Hotel

Check In

Check Out

Night

Room

Meal

Delhi

Shanti Plaza / Similar

01 May 22

04 May 22

3

 03 Double

CP

Pahalgam

Green Orchid/ Highlands/ Queens Park or Similar

04 May 22

05 May 22

1

MAP

Srinagar

Regal Palace/Impex Hill Resort/  Golden Sands/ Vilasta/ Grand Habib or Similar

05 May 22

08 May 22

3

MAP

Srinagar

Houseboat

08 May 22

09 May 22

1

MAP

Note : Rooms are not hold.

COST INCLUDES: –

  • All Transfers between Airport – Hotel – Airport by taxi
  • Accommodation on Double/ Twin sharing basis.
  • Daily breakfast & Dinner in Hotels/ Houseboat except Delhi by breakfast only.
  • 01-Hour Shikara Ride Complimentary
  • All Transfers & Sightseeing as per Programme.
  • Srinagar – Pahalgam – Gulmarg – Srinagar – Delhi – Agra
  • Transportation by Non Ac Innova Car except Delhi by AC Innova.
  • All service charges, driver allowances, Toll Tax, parking etc.

COST EXCLUDES:

  • VISA Fee is Excluding. We can do the VISA Per Passport BDT 1,500/- Including VISA Fee;
  • Any kind of bus or rail fare and Air fare.
  • Personal and medical insurance.
  • Professional Tourist Guide Charges @BDT 3,500/ Day
  • Personal expenses such as tips, laundry, phone call etc.
  • Any kind of drinks (alcoholic, mineral, soft or hard and starters.)
  • Inner line Sightseeing at Pahalgam like Chandanwari, Aru Valley, Betaab Valley, Baisaran (Mini Switzerland) &  Thajiwas Glacier, Zero Point, Zojila Pass, Fish Point etc. at Sonmarg
  • Entrance Fees, Cable Car Ride, Pony Ride, camera fee, and monument guide services
  • Anything not specifically mentioned under the head “Cost Inclusion”.
  • Adventure activity like Rafting, Camel Safari, Mountain Biking, Motor Biking etc.
  • Extra nights in hotel due to ill health, flight cancellation or any other reason.
  • GST Extra (Applicable as per current GST structure, any changes will may charge extra)
  • The service of vehicle is not included on leisure days & after finishing the sightseeing tour as per the itinerary.
  • Extensions of tour programme or diversions in the tour itinerary for any reasons eg. due to bad weather, road closure, breakdown or any natural calamities.
  • Entrances fee in Agra Taj Mahal, Agra Red Fort

PER PERSON RATE ON MAPAI BASIS FROM 01st- April – 31st July 2022

Package Itinerary
BDT 27,600 Per Person ( Min 6 Persons) Deluxe Category Hotel Only Land Package ( Airfare need to add apprx 30,500)
  • BDT 58,000 Per Person ( Min 6) Deluxe Category Hotel ( Land Package + All Air Fare)
  • BDT 45,000 Per Person ( Min 6) Deluxe Category Hotel ( Land Package and with By Road - DAC-CCU-DAC, CCU-Del-CCU by Train, Del-Jammun-Del)
  • List Item
Popular

Payment and Booking Process :

  1. To book and confirm the Package, anyone can book the package of BDT 5,000/-. For VISA Processing, we assist Tourist VISA per passport BDT 1,500/- ( Non-refundable) and Passenger need to submit physically to the IVAC Center. VISA fully depends of Indian Embassy Policy. If any reason, VISA is rejected, we have no any liability on VISA Issues. VISA Fee and service charege is non-refundable.
  2. After getting the VISA, Passenger need to settle rest full amount to us within a week.

Terms & Conditions:

  • Prices valid from 01st Mar 2022 to 31st July 2022
  • Prices valid for minimum 02, 03, 04, 06 Pax Travelling together in given one vehicle.
  • 100% payment to be deposited before the trip starts.
  • Final Confirmation will be provided on full payment.
  • Vehicle Provided as per mention tour plan (Point to Point Basis only)
  • No Refund or Compensation for any unused services / transportation in any circumstance.
  • Any changes done on trip, applicable charges will be charged.

Note:

  • Rates are Subject to Change without any Prior Notice

Cancellation Policy for Land Package.

  • 20% cancellation charges if cancelled before 45 days before the tour.
  • 35% cancellation charges if cancelled between 45 – 30 Days before the tour.
  • 50% cancellation charges if cancelled between 30 – 10 Days before the tour.
  • No refund if cancelled before 10 days of trip start.
  • No Refund or Compensation on any changes on on going trip.

Any changes done on trip, applicable charges will be charged

Tour Package Policy :

We are offering Professional Tour Package and maintain quality and safety for our passenger all the time. All the members of the Tour Package need to follow the Tour Organizer Rules and guideline properly. Everyone should be gentle and follow the discipline of the respective locations. No one can involve any antisocial activities, drug or any kind of harassment to other members or local people. If anyone do not listen or follow the rules, we can terminated the members from the group without providing any compensation.